Posts

মেগালোডন - দুনিয়ার সবচেয়ে ভয়ংকর প্রাণী

Image
আপনাকে যদি প্রশ্ন করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ংকর প্রাণী কোনটি? আপনি হয়তো বিনা দ্বিধায় টাইর‍্যানোসরাস (ডায়নোসর) এর নাম বলে দিবেন। কিন্তু জেনে অাবাক হবেন যে, আদিম যুগে সমুদ্রে এমন এক ভয়াবহ জীব রাজত্ব করতো, যার সামনে ডায়নোসর গোত্রের সবচেয়ে ভয়ংকর প্রানী টাইর‍্যানোসরাসও ছিলো পুরোপুরি অসহায়। সেই রাক্ষুসে জীবটির নাম 'মেগালোডন'। আজ থেকে প্রায় ২৩ মিলিয়ন বছর আগে সাগরের অতলে বাস করতো হাঙ্গর গোত্রিয় এই অতিকার মাছটি।
মেগালোডনের ফসিল গবেষণা করে বিজ্ঞানীরা জানতে পেরেছেন, মেগালোডন ছিলো হাঙ্গর গোত্রেরই একটি অতি বৃহৎ প্রজাতি। আকারে মেগালোডন কত বড় ছিল তার উত্তর পাওয়া যায় তার দাঁত দেখেই। এদের সবচেয়ে বড় যে দাঁতটি পাওয়া গেছে সেটি লম্বায় সাত ইঞ্চি আর চওড়াও কম নয়। যেখানে বর্তমান পৃথিবীর সবচেয়ে বড় এবং ভয়ানক হোয়াইট শার্কের দাঁতও সর্বোচ্চ তিন ইঞ্চি হয় কদাচিৎ। তবে দাঁত এবং কশেরুকা ছাড়া মেগালোডনের আর কোনো নমুনা পাওয়া যায়নি। তাই এদের নিকটতম আত্মীয় হোয়াইট শার্কের সাথে তুলনা করে এবং ফসিল পুনঃবিন্যাস করে বিজ্ঞানীরা এদের ব্যাপারে আমাদের মোটামুটি একটি ধারণা দিয়েছেন।


প্রায় ২৩ মিলিয়ন বছর আগে বিলুপ্ত হওয়ার পাশাপাশি সাম…

AMP ওয়েবসাইট কি? কীভাবে কাজ করে? কীভাবে একটি AMP ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?

Image
AMP কি?
AMP এর পূর্ণরূপ হচ্ছে Accelerated Mobile Page. AMP হলো স্থায়ী সামগ্রীগুলির জন্য ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি তৈরির একটি উপায় যা দ্রুত রেন্ডার করে। AMP JS Library, AMP ওয়েব পৃষ্ঠাগুলির দ্রুত উপস্থাপনা নিশ্চিত করে। গুগল AMP টি এমন দৃষ্টিভঙ্গির সাথে প্রবর্তন করেছিল যে প্রকাশকরা একবার মোবাইল অপ্টিমাইজড সামগ্রী তৈরি করতে পারে এবং তা তাৎক্ষণিকভাবে সর্বত্র লোড করা যায়।
Google AMP Cache কি? গুগল AMP Cache কেবলমাত্র একটি প্রক্সি ভিত্তিক সামগ্রী বিতরণ নেটওয়ার্ক যা সমস্ত বৈধ AMP নথি সরবরাহ করে। এটি AMP এইচটিএমএল পৃষ্ঠাগুলি আনে, সেগুলি Cache করে এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবে পৃষ্ঠার কার্যকারিতা উন্নত করে। গুগল AMP Cache নথিটি, সমস্ত উৎস এবং JS ফাইল একই উৎস থেকে লোড করে যা সর্বোচ্চ কার্যকারিতা সরবরাহ করতে HTTP 2.0 ব্যবহার করে .
কেন AMP ব্লগার নেই? যদিও AMP একটি গুগল-সমর্থিত প্রকল্প এবং ব্লগস্পট গুগলের ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম, কিন্তু গুগল বলছে "ব্লগার বর্তমানে AMP এইচটিএমএল সমর্থন করে না।" কিন্তু আমরা এটি সেভাবে করতে পারি না? পারি। নিচের এই পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন এবং আপনার ব্র্যান্ডের জন্য নতুন একটি AMP…

True Story About Titanic - টাইটানিকের সত্য ঘটনা

Image
টাইটানিক ডোবেনি!?
প্রথমেই বলে নিচ্ছি, লেখাটা বড়। আগে মনোযোগ দিয়ে ছবিগুলো দেখুন তারপর লেখাটা শেষ পর্যন্ত ধৈর্য ধরে পড়ুন। তাহলে একটা ধারনা পাবেন, টাইটানিক ট্রাজেডি'র নেপথ্য কিছু ছিল কিনা। পড়ুন, আপনি আরও অজানা কিছু জানতে পারবেন আশাকরি।
প্রথম ছবির জাহাজ’টির নাম একটা বাচ্চা-ও জানে।    জাহাজ’টির নাম ‘Titanic’, The largest ship afloat at that time, was considered unsinkable 
কিন্তু দুঃখের সাথে বলতে হচ্ছে,      নিচের জাহাজ’টি আসলে Titanic নয়। এর নাম Olympic,  Titanic জাহাজের মত হুবহু দেখেত। যমজ।
(নাম মুছে দিলে সে’সময় কেউ ধরতেও পারতো না, কোনটি Titanic, আর কোনটি অলিম্পিক)   সত্যিটা হলো, Titanic was not “the largest” ship, rather it was ‘one of the largest’ ship ever built at that time. 
কিন্তু গত শতাব্দীর সবচেয়ে আলোচিত জাহাজটি ডুবেছে? নাকি জোর করে ডোবানো হয়েছে? আর কোন জাহাজটি ডুবেছে? টাইটানিক, নাকি অলিম্পিক? আর যদি স্যাবোট্যাজ করে ডোবানো হয়ে থাকে, তাহলে কারা এ কাজ করেছে? কেন করেছে? 
একটু পেছন থেকে শুরু করি।   
যারা ‘গ্লোবাল ইকোনোমিক ক্রাইসিস’ নিয়ে হালকা পাতলা অনুসন্ধান করেছেন, তারা সবাই নি…

জেনারেল কাসেম সোলাইমানি: দুনিয়ার এক নম্বর জেনারেল

Image
এ মুহূর্তে বিশ্বে সবচেয়ে আলোচিত সমরবিদ কে? এ প্রশ্নের উত্তরে বহুমত থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে এর সম্ভাব্য একটা উত্তর হতে পারে সিআইএ ও মোসাদের হিটলিস্ট। এই দুই সংস্থার প্রতিপক্ষ হিসেবে বর্তমানে সর্বাগ্রে গুরুত্ব পাচ্ছেন জেনারেল কাসেম সোলাইমানি। নিজ দেশে ভক্তদের কাছে যাঁর পরিচিতি হাজি কাসেম নামে। শুধু মধ্যপ্রাচ্য নয়, পুরো সমরজগতের বিশেষ মনোযোগে রয়েছেন তিনি এখন।
আইআরজিসি নামে পরিচিত ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড ক্রপসের একজন কমান্ডার সোলাইমানি। তবে অলিখিতভাবে তাঁর পদমর্যাদা দেশটির যেকোনো সামরিক কর্মকর্তার ওপরে। রেভল্যুশনারি গার্ডের ‘কুদস্ ফোর্স’ তাঁর নিয়ন্ত্রণে পরিচালিত হয় । ২১-২২ বছর হলো বাহিনীটি গড়ে তুলছেন তিনি। আন-কনভেশন্যাল যুদ্ধের জন্য তৈরি একটা বৃহৎ ‘স্পেশাল অপারেশান ইউনিট’ বলা যায় কুদস ফোর্সকে, যার প্রধান কর্মক্ষেত্র এখন ইরানের বাইরে। দেশটির বৈশ্বিক উত্থানে বর্শার ফলকে পরিণত হয়েছেন কুদস ফোর্সের সদস্যরা, যাঁদের ব্যবহার করে মধ্যপ্রাচ্যে ইতিমধ্যে সামরিক ভারসাম্যে পরিবর্তন ঘটিয়ে ফেলেছেন হাজি কাসেম। যে তৎপরতার তাপ লাগছে পৃথিবীর অন্যত্রও; বিশেষ করে অর্থনীতিতে।
#বিশাল_এক_আন্তর্দেশীয়_ছদ্মযুদ্…

মারিয়ানাস ওয়েব সম্পর্কিত সব গোপন তথ্য

Image
ম্যারিয়ানাস ওয়েব পৃথিবীর রহস্যময় গুপ্ত তথ্য ভান্ডার।
ম্যারিয়ানাস ওয়েব কি জিনিস তা বুঝতে হলে আপনাকে প্রথমে ওয়েভ বা ইন্টারনেটের তথ্যভান্ডার সম্পর্কে জানতে হবে। ইন্টারনেটের তথ্য ভান্ডারকে মুলত ৩ ভাগে ভাগ করা যায়। যথা..... সারফেস ওয়েব, ডিপ ওয়েব এবং ডার্ক ওয়েব।
সারফেস ওয়েবঃ ইন্টারনেটের যেসব তথ্য সবার জন্য সম্পূর্ন ফ্রি, এবং সবার জন্য উন্মুক্ত সেগুলো থাকে সারফেস ওয়েভে। আমরা গুগল বা অন্য কোনো সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে যেসব তথ্য ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করতে পারি তা সবই সারফেস ওয়েবের অন্তর্ভুক্ত।
ডিপ ওয়েবঃ  ইন্টারনেটে থাকা ব্যাক্তিগত তথ্য, প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত তথ্য, সিকিউরিটি ব্যাবস্থা যুক্ত তথ্য সমূহ হচ্ছে ডিপ ওয়েবের অন্তর্ভুক্ত। ডিপ ওয়েবের তথ্য যে কেউ চাইলেই ব্রাউজ করতে পারবে, তবে এর এক্সেস আপনার কাছে থাকতে হবে। ডিপ ওয়েবের তথ্য গুগলে ইনডেক্স হয় না। এই ওয়েবের তথ্য গুলো সিকিউরিটি ব্যাবস্থা দ্বারা নিরাপদ করে রাখা হয়। অফিস আদালতের গুরুত্বপূর্ন তথ্য, সরকারি তথ্য, ব্যাক্তিগত গোপনে সংরক্ষিত তথ্য ইত্যাদি সবই ডিপ ওয়েবে জমা থাকে। এই ডিপ ওয়েবের তথ্যকে হ্যাকাররা চাইলে হ্যাক করতে পারে। ডিপ ওয়েবের আকার খুবই …

তারিম মমির ইতিহাস

Image
ইতিহাসকে প্রশ্নবিদ্ধ করা বিস্ময়কর মমির গল্প...... পৃথিবীর হাজার বছরের ইতিহাসের মাঝে চীন সাম্রাজ্যের ইতিহাস অন্যতম সমৃদ্ধ। এর পেছনে মূল কারণ হলো চীনের ইতিহাস সংরক্ষিত আছে চীনের পথে ঘাটে, অলিতে-গলিতে, দেয়ালের কারুকার্যে, ভাস্কর্যে এবং মন্দিরের বেদিতে। এছাড়াও বিখ্যাত পণ্ডিত এবং পরিব্রাজকদের ব্যক্তিগত নথিপত্রে চীনের ইতিহাস বিস্তারিতভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। যদি পৃথিবীর বাকি ইতিহাসে ফাঁকি থাকার বিন্দুমাত্র অবকাশও থাকে, সেটা চীনের ক্ষেত্রে কখনও সম্ভব নয়। কিন্তু ১৯৭৮ সালের দিকে চীনের তারিম অববাহিকা অঞ্চলে বেশ কিছু লাশের সন্ধান পাওয়া যায়। ইতিহাসবিদদের কাছে লাশগুলো ‘তারিম মমি’ নামে পরিচিতি লাভ করে। চীনের ঝিংঝিয়াং প্রদেশে আবিষ্কৃত তারিম মমিগুলো প্রায় ৪ হাজার বছর পুরাতন। গবেষণাগারে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিজ্ঞানীরা যা জানতে পারলেন, তা এর আগে কেউই জানতো না। এমনকি ইতিহাসবিদরাও দ্বিধায় পড়ে গেলেন। কারণ মমির গল্পের সাথে মিলছে না ইতিহাসের উপাখ্যান। চীনের সমৃদ্ধ ইতিহাসের মুকুটে সূক্ষ্ম খাদ হয়ে আবির্ভূত হলো তারিম মমি। তারিম মমি আবিষ্কার: ১৯৭৮ সালের ঘটনা। চীনের ঝিংঝিয়াং অঞ্চলে অবস্থিত তারিম অববাহিকায় প্রত্ন…