অবশেষে টিকটক সহ ৫৯ টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করলো ভারত

আসসালামু আলাইকুম। আশাকরি সবাই ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছি। আর যারা নিয়মিত ট্রিকবাজের সাথে থাকেন তাদের ভালো থাকারই কথা। কেননা, এখান থেকে আমরা প্রতিনিয়ত অনেক অজানা এবং গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন টিপস এবং ট্রিকস সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারি। আমি আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো ভারতে নিষিদ্ধ করা ৫৯টি চাইনিজ অ্যাপস সম্পর্কে। তাই আর দেরি না করে চলুন শুরু করি।

India banned 59 chinese apps


★ অবশেষে ৫৯ টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করলো ভারত?

গোপনীয়তা ও সুরক্ষা নীতিমালা না মানায় ভারত সরকার দেশটিতে অন্তত ৫৯টি চীনা অ্যাপস নিষিদ্ধ করেছে। এসব অ্যাপসের মধ্যে রয়েছে জনপ্রিয় ভিডিও তৈরির অ্যাপ টিকটক, উইচ্যাট, হ্যালো, শেয়ারইট, ইউসি ব্রাইজার, শপিং অ্যাপ ক্লাব ফ্যাক্টরি ইত্যাদি।


ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা অ্যাপগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছিল যে, এগুলো ব্যবহারের শর্ত লঙ্ঘন করছে, ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার সাথে আপোস করছে এবং স্পাইওয়্যার বা ম্যালওয়্যার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। যার পরেই সরকার অ্যাপগুলো নিষিদ্ধ কারার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতোমধ্যে ব্যবস্থা হিসেবে অ্যাপগুলো দেশটিতে ব্লক করা হয়েছে বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে। 

এদিকে ইকোনোমিক টাইমসে সরকারের দেয়া এক বিবৃতি উদ্ধৃত করে বলছে, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৬৯এ ধারায় সরকার অ্যাপসগুলোকে নিষিদ্ধ করেছে। ২০০৯ সালের বিধিমালা অনুযায়ী সরকার তার ক্ষমতা প্রয়োগ করেছে। 

সরকারের একটি সূত্র জানিয়েছে, মূলত অ্যাপগুলো দীর্ঘদিন থেকেই দেশের সুরক্ষা ও গোপনীয়তার নীতিমালা ভঙ্গ করে আসছিল। এর ফলে দেশের বিভিন্ন তথ্য পাচার হবার আশঙ্কা ছিল। যে কারণে দেরিতে হলেও ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। যেসব অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হয়েছে সেগুলোর মধ্যে অত্যধিক জনপ্রিয় টিকটক, ইউসি ব্রাউজার। 

এছাড়াও রয়েছে লাইকি, ক্ল্যাশ অব কিং, ভাইরাস ক্লিনার, উইবো, উইচ্যাট, ভিগো লাইভ, সেলফি সিটি, ক্যাম স্ক্যানারসহ আরও অনেক।

উল্লেখ্য, ভারতের লাদাখ সীমান্তে গত ১৫ জুন ভার-চীন সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষে ভারতের ২০ সেনা নিহত ও শতাধিক সেনা আহত হয়। এরপর পুরো ভারতজুড়ে চীনা পণ্য বর্জনের ডাক দেয় বিভিন্ন মহল। এমন এক সময়েই ভারত সরকার চীনা এসব অ্যাপ নিষিদ্ধ করলো।

★ দেখুন ভারতে ব্যান হওয়া অ্যাপগুলো কি কি?

India banned 59 chinese apps


লেখকঃ Md shakil Hasan