ইউটিউব চ্যানেল হ্যাক হওয়ার হাত থেকে বাঁচানোর ৬টি গুরুত্তপূর্ণ টিপস

হ্যালো ফ্রেন্ডস
আশা রাখছি সবাই ভালো আছেন।
কিন্তু আমি ভালো নাই কারণ আপনাদের মাঝে একটা খারাপ খবর নিয়ে হাজির হয়েছি।

আমাদের সবার কম বেশি শখের ইউটিউব চ্যানেল থাকে কিন্তু এই চ্যানেল যদি হ্যাক হয়ে যায় তাহলে কেমন লাগবে। আমাদের এই চ্যানেল বড় করতে কত সময় লাগে একমাত্র সেই জানে তাহলে হ্যাক হওয়ের কষ্টা বুঝতেই পারছেন। একমাত্র যার গেছে সেই বোঝে এর মধ্যে অনেকে ফেরত আনতে পারছে আবার কেউ আনতে পারেনি।

তো চলুন শুরু করা যাক কি ভাবে আপনার চ্যানেল হ্যাক হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করবেন।

আজকে আপনাদের মাঝে ৬ টিপস শেয়ার করবো যা আপনার চ্যানেল কে হ্যাকের হাত থেকে বাঁচাবে এবং ফেরতও আনতে পারবেন যদি আমার টিপস গুলো মেনে চলেন।

১. অবশ্যই আপনার ইমেইলের পাসওয়ার্ড গুলো শক্তিশালী করুন এবং অনেকে গুলো কিওয়াড ব্যবহার করুন। যেমন: qK09@&%tL#$ তাহলে কোন ধরনের ব্রুটফোরস হ্যাক দিয়েও হ্যাক হবে না।

২. ইউটিউব চ্যানেল ২ ধরনের হয়ে থাকে। একটা হচ্ছে পারসোনাল অ্যাকাউন্ট এবং ব্রান্ড অ্যাকাউন্ট।
পারসোনাল হচ্ছে আপনার নিজের ইমেইল অ্যাকাউন্ট এবং ব্রান্ড অ্যাকাউন্ট হচ্ছে আপনার বন্ধুবান্ধব ও চালাতে পারবে। সো আপনার চ্যানেল পারসোনাল হোক বা গ্রুপ হোক আপনি এটা ব্রান্ড অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করে নিবেন। এতে করে যে সুবিধা টি হবে চ্যানেল হ্যাক হলে আপনার কাছে একদিন সময় থাকবে যা ব্যাক আনতে আপনাকে সাহায্য করবে। আর পারসোনাল ইমেইল হলে সাথে সাথে হ্যাকার সেটা রিমুভ করে দিবে।
তখন আর সময় পাচ্ছেন না তো অবশ্যই ব্রান্ড অ্যাকাউন্টে নিবেন হ্যাক হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবেন।

৩. যদি আপনি ব্রান্ড অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করেন তাহলে আপনি একটা ইউনিক ইমলেই সেট করতে পারবেন যা কোন হ্যাকার সেটা রিমুভ করতে পারবে না। আর অবশ্যই আপনার ইউনিক ইমেইল টি যত্ন করে রাখুন কারণ চ্যানেল হ্যাক হলে আপনি ইউটিউবের সাপোর্টে কথা বলে চ্যানেল ব্যাক আপনতে পারবেন।

৪. অনেকে ইমেইল আইডি খোলেন কিন্তু রিকোভারি ফোন নাম্বার ও ইমেইল ব্যবহার করেন না। কিন্তু এখানে অবশ্যই আপনার রিকভারি ফোন নাম্বার ও মেইল ব্যবহার করা উচিৎ কারণ আপনার চ্যানল যখন হ্যাক হবে ঠিক তখন নতুন কোন ডিভাইসে ইমেইল লগইন করবো তখন আপনার কাছে একটা কোড আসবে এবং একটা নোটিফিকেশন ও আসবে যে আপনি কি নতুন কোন ডিভাইসে লগইন করছেন কি না। যদি না করেন তাহলে অ্যাপসেট নো করে দিবেন তাহলে আপনার চ্যানেলের অ্যাকসেস নিতে পারবেন।

৫. এনাবেল টু ফ্যাকটর আমি অনেক বড় চ্যানেল দেখেছি যে তারা এই টু ফেকটর চালু করে রাখে না। এটা কিন্তু হ্যাক হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। সো এজন্য টু ফেকটর খুবই জরুরি।
অবশ্যই টু ফেকটর চালু রাখবেন। কারণ হ্যাক করতে গেলে আপনার ফোন বা মেইলে একটা কোড দিবে যে কোড না দিলে লগইনই করতে পারবে না। ৯৯.৯% হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।

৬. আপনার মেইলে অনেক গুলো ফেইল আসে কোন গুলোতে ক্লিক করবেন কারণ হ্যাকারা টার্গেট করে আপনাকে স্প্যাম মেইল করে যা ক্লিক করলে আপনার চ্যানেল হ্যাক হবে। যেমন ধরেন আপনার কে বলবে স্পন্সরশীপ করেন কোম্পানি এতো ডলার দিবো বা এই করেন সেই করেন যা খুবই লোভনীয় হয়ে থাকে তবে ক্লিক করলেই সর্বনাশ। অবশ্যই কোন মেইলে ক্লিক করার আগে ১০০ বার ভেবে নিবেন প্রয়োজনে ইমেইল সাইন আউট করে তার পর ক্লিক করবেন। এমন হতে পারে যে আপনার চ্যানেলে স্টিক আসছে আপনি এই লিংকে ক্লিক করুন খবরদার এটা কখনো করবেন না। আগে আপনার ড্যাশবোডে গিয়ে দেখুন কি অবস্থা স্টিক আসছে কি না। তাহলে মনে হয় আপনার চ্যানেল হ্যা হওয়ার হাত থেকে বাঁচবে।

আমি এতোক্ষন যে বক বক করলাম অবশ্যই আপনি এই টিপস গুলো মেনে চলবেন তাহলে আশা করি কোন সমস্যা হবে না।

© Jishan

Post a Comment

0 Comments