Be a Trainer! Share your knowledge.
Homeফাইভারে প্রথম অর্ডার পাওয়ার অভিজ্ঞতা এবং সফল হওয়ার অতিপ্রয়োজনীয় কিছু টিপস

ফাইভারে প্রথম অর্ডার পাওয়ার অভিজ্ঞতা এবং সফল হওয়ার অতিপ্রয়োজনীয় কিছু টিপস

1589607740247481 0

গ্রুপে ম্যাক্সিমাম টাইমই দেখি অনেকের অভিযোগ ভাই অর্ডার পাইনা! অনেকে অনেক পোস্ট করেন৷ কমেন্টে অনেকে সাহায্য চান সবার কাছে৷ গ্রুপের এডমিনরাও এই নিয়ে অনেক পোস্ট করে আর অনেক হেল্পও করে৷ সবাই বলে অর্ডার পাওয়ার মুলমন্ত্র হচ্ছে কাজ জানা আর আপনার ক্রেতাকে আকৃষ্ট করা৷
তারপরেও বেশিরভাগ নতুন সেলাররা না বুঝেই, কাজ না জেনে একাউন্ট খুলে এরপর তাদের গিগের লিংক হাজার হাজার গ্রুপে শেয়ার করে কিছুদিন স্প্যামিং করে৷ যখন দেখে কোন কাজ হচ্ছেনা তখন হতাশ হয়ে ভাবে আমাকে দ্বারা সম্ভব না। এইভাবেই অনেকের ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরুর আগেই শেষ হয়ে যায়৷ 
তো এই নিয়ে আমার নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করি৷ 
যদিও আমি প্রোফেশনাল কোন ডিজাইনার না, তারপরও নিজে নিজেই কাজ শিখে অনেকদিন ধরেই লোকাল কিছু কাজ করেছি। অবশ্য সবই ছিল বিনা পারিশ্রমিকে আর শখের বসে৷ এমনকি এক ফাইভার এর ফ্রিল্যান্সার ফ্রেন্ড এর কাজও করে দিয়েছি আগে৷ তো একসময় মনে হয় যেহেতু ডিজাইন করতে ভালো লাগে যদি এটাকে কাজে লাগিয়ে কিছু করা যায় তাহলে কেন না? তবে শুরুতে ভয় ছিল। কেউ কেউ বলে কাজ পাওয়া যায়না, অনেক কষ্ট আরো অনেককিছুই৷ 
এসবে কান না দিয়ে ফাইভার নিয়ে রিসার্চ শুরু করি৷ কিভাবে কাজ করে, আমার দ্বারা সম্ভব কিনা, কাজ করতে কি কি জানা জরুরী। তো একসময় মনে হয় যতটুকু জেনেছি তা দিয়ে শুরু করা সম্ভব। তো খুলে ফেলি একাউন্ট৷ একাউন্ট খুলে সুন্দর করে টাইটেল, কিওয়ার্ড, ট্যাগ দিয়ে একটা গিগ খুলে ফেলি৷ এবং শুরুর দিন থেকে বায়ার রিকোয়েস্ট পাঠাতে থাকি৷ তবে বায়ার রিকোয়েস্ট কোন কপি-পেস্ট না, রিকোয়ারমেন্ট পড়ে সেই অনুযায়ী রিপ্লাই করেছি৷ 
একাউন্ট খুলার ৫ দিনের মাথায় নতুন আরেকটা গিগ খুলি। এবং আগের মত বায়ার রিকোয়েস্ট পাঠাতে থাকি। ঠিক ৭ দিনের মাথায় বায়ার রিকোয়েস্ট থেকে একজন বায়ার নক দেয়৷ তো আসল কাহিনী শুরু এখান থেকেই!
বায়ার তার পোস্ট করা রিকোয়েস্ট থেকে ৫ জন ডিজাইনার বেছে নেয় যারা তার পোস্টে যথাযথ রিপ্লাই করেছে। এবং তাদের সবার কাছেই তাদের কাজের স্যাম্পল চায়৷ (যদিও এই ব্যাপারগুলা অর্ডার পাবার পরে বায়ায়ের কাছেই জানতে পারি) সেই অনুযায়ী আমি কাজের স্যাম্পল পাঠাই এবং তার কথার এন্সার দিতে থাকি৷ সবসময় চেষ্টা করতাম ম্যাসেজ এর সাথে সাথে রিপ্লাই করার৷ তো এক পর্যায়ে সে অনেক প্রশ্নই শুরু করে এবং জিজ্ঞেস করে আমি তোমার থেকে কেন সার্ভিস নেব? আমি তাকে বুঝাই যে আমার মত সার্ভিস আপনাকে আর কেউ দিতে পারবেনা৷ (যদিও আমি নিজেই জানি যে ফাইভারে আমার থেকে আরো অনেক ভালো সার্ভিস আছে 🤣) তো, আমার কথায় সে মোটামুটি ইমপ্রেস হয়ে যায়৷ শুরুতেই সে বলেছিল তার একটি লোগো লাগবে এবং বাজেট কত৷ পরে সব কথাবার্তা শেষ হওয়ার পরে সে বলে তার একটি না, দুইটি লোগো লাগবে এবং সে আমার কাছে প্রাইজ জানতে চায়৷ আমি তাকে তার শুরুর বলা বাজেট এর থেকে কিছুটা বেশিই বলি প্রাইজ এবং সে রাজি হয়ে যায়৷ সব কাজ কমপ্লিট করার পর কোন রিভিশন ছাড়াই দুইটা অর্ডারই কমপ্লিট হয়ে যায়৷ আর সে খুব খুশি ছিল।  রিভিউয়ে সে মেইন পয়েন্টগুলা তুলে ধরে বলেঃ
১। ডিজাইনগুলা প্রিমেড কোন ডিজাইন না।
২। কনভার্সেশনে ফ্লুয়েন্সি
৩। তার রিকোয়ারমেন্ট ভালোভাবে বুঝে সে অনুযায়ী কাজ করা৷
এতক্ষণ যা বললাম সব আমার নিজের অভিজ্ঞতা। কোন শো-অফ করার জন্য বা কাউকে ছোট করার জন্য কিছু না৷ 
আমার মতে ফাইভারে অর্ডার পেতে গেলে আপনার গ্রুপে গ্রুপে স্প্যামিং এর কোন দরকার নেই৷ যদি ফাইভারে নতুন হয়ে থাকেন তাহলেঃ
*আগে ফাইভার বিষয়ে ভালোভাবে জানার চেষ্টা করুন।
*ভালোভাবে কাজ শিখুন।
*ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ান।
*ভালোমত রিসার্চ করে কিওয়ার্ড, ট্যাগ দিয়ে গিগ খুলুন
*যথাসম্ভব একটিভ থাকার ট্রাই করুন
*ম্যাসেজ এর ফাস্ট রিপ্লাই করুন আর বুঝেশুনে রিপ্লাই করুন।
*কথার দ্বারা বায়ারকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করুন৷ 
আশা করি কাজ পেতে কোন সমস্যা হবেনা৷ 
কষ্ট করে এত বড় লিখা পড়ার জন্য ধন্যবাদ। লেখায় কোন ভুলত্রুটি থাকলে ক্ষমার চোখে দেখবেন৷
লেখকঃ রাকিব চৌধুরী
© TrickBuzz.Net 2015-2020

About Author (229)

Avatar of Sironamhin

This author may not interusted to share anything with others

Leave a Reply

Related Posts

Switch To AMP Version